কেন মাল্টিলেভেল মার্কেটিং করবেন জেনে নিন।

মাল্টিলেভেল মার্কেটিং-ই হচ্ছে একমাএ ব্যবসা, যেখানে আয় ব্যয়ের কোন সীমা-রেখা নেই, আছে অবাধ উপার্জনের পথ; কোন পরাধীনতা নেই, আছে স্বাধীন কর্মপ্রেরণা।

dxn marketing plan

মাল্টিলেভেল মার্কেটিং
কেন মাল্টিলেভেল মার্কেটিং?
বেকার স্বল্প আয়ের লোকজনের আধুনিক লাইফষ্টাইল প্রতিষ্ঠা করতে স্বল্প পুঁজি, স্বল্প ঝুঁকি স্বল্প শ্রম স্বল্প সময় বিনিয়োগ করে স্বাধীনভাবে সততার সাথে, সর্বোপরি হালাল পথে সন্মানজনক একটি বাড়তি আয়ের জন্য মাল্টিলেভেল মার্কেটিং বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে।

মাল্টিলেভেল মার্কেটিং হচ্ছে একমাএ ব্যবসা, যেখানে আয় ব্যয়ের কোন সীমারেখা নেই, আছে অবাধ উপার্জনের পথ; কোন পরাধীনতা নেই, আছে স্বাধীন কর্মপ্রেরণা। কোন জবাবদিহিতা নেই, আছে আন্তরিক সহমর্মিতা, যেখানে কারো আদেশ মোতাবেক চলতে হয় না। এমনকি যেখানে কখনো কোনরুপ চাপের কাছে নিজের স্বাধীন স্বত্তাকে বিসর্জন দিতে হয় না।

কারা করবেন মাল্টিলেভেল মার্কেটিং?
উচ্চ শিক্ষিত, স্বল্প শিক্ষিত , বেকার, স্বল্প আয়ের চাকুরীজীবি বা পেশাজীবি, সমাজসেবী, রাজনীতিবিদ, নারীপুরুষ নির্বিশেষে সকল শ্রেনীর মানুষের বাড়তি আয়ের প্রয়োজন মেটাতে পারে মাল্টিলেভেল মার্কেটিং ব্যবসা পদ্ধতি।

বিকল্প পেশা হিসাবে মাল্টিলেভেল মার্কেটিং
মূল পেশা ঠিক রেখে, অবসর সময়কে কাজে লাগিয়ে বাড়তি আয় অর্জনের একমাএ বিকল্প হচ্ছে মাল্টিলেভেল মার্কেটিং ব্যবসা পদ্ধতি; যেখানে উচ্চশিক্ষা বা পূর্ব অভিজ্ঞতা দরকার হয় না।

মাল্টিলেভেল মার্কেটিং এর সূচনা
বিশ্ববাণিজ্যে বিপণন প্রক্রিয়ায় সর্বশেষ সংযোজন মাল্টিলেভেল মার্কেটিং সিষ্টেম বা নেটওয়ার্ক মার্কেটিং সিষ্টেম। এটি ডাইরেক্ট মার্কেটিং সিষ্টেম, ফ্রীডম এন্টার প্রাইজ, হোমবেজ বিজনেস ইত্যাদি নামেও পরিচিত। একজন আমেরিকান কেমিষ্ট ডঃ কার্ল রেইন বোর্গ(Dr. Carl Rehn Bourgh) ১৯৩৪ সালে প্রাকৃতিক সার ব্যবহার করে উৎপাদিত শাকসব্জী থেকে ভিটামিন তৈরী করে তাঁর NutriliteProduct In Corporated কোম্পানীর মাধ্যমে সর্বপ্রথম এই পদ্ধতির সূচনা করেছিলেন। বিশ্বনন্দিত এই বিপণন পদ্ধতিটি ১৯৫৮ সালে আমেরিকার পার্লামেন্ট সিনেট অনূমোদন লাভ করে এবং আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায়।

মাল্টিলেভেল মার্কেটিং এর উদ্দেশ্য
পণ্য বিপণন ব্যবস্থায় উৎপাদনকারী ভোক্তার মধ্যকার গুটিকতক এজেন্ট, মিডিয়া, বিজ্ঞাপণ সংস্থা, পাইকারী খুচরা বিক্রেতা, এক কথায় মধ্যস্বত্ত্বভোগকারী শ্রেণীকে প্রত্যাহার করে, স্থানে ভোক্তাদেরকেই উৎপাদনকারীর নিকট থেকে সরাসরি বাজার মূল্যে পণ্য ক্রয় পরিবেশনের সূযোগ দেয়া হয়, যেন সমাজের অসংখ্য বেকার স্বল্প আয়ের মানুষ পার্টটাইম বা ফুল টাইম কাজ করে বাড়তি আয় অর্জনের সুযোগ পায়।
ট্রেডিশ্নাল বা প্রচলিত পদ্ধতিঃ

নেটওয়ার্ক বা ডাইরেক্ট মার্কেটিং পদ্ধতিঃ

ইসলামের দৃষ্টিতে মাল্টিলেভেল মার্কেটিং ব্যবসাঃ
ব্যবসার সংজ্ঞাঃ দ্বিপাক্ষিক সন্তষ্টির ভিত্তিতে পরস্পরের মধ্যে পণ্য বা দ্রব্য বিনিময় কার্যকর হলে সেই কার্যক্রমকে ব্যবসা বলে। তবে পণ্য বা দ্রব্য বিনিময়ের ক্ষেত্রে অর্থ বিনিময়ের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে।
ব্যবসা এর রোকনঃ
) বিক্রেতা প্রস্তাব দিবে
) ক্রেতা গ্রহন করবে
ব্যবসা এর হুকুমঃ
বিক্রিত দ্রব্যের উপর ক্রেতার এবং মূল্যের উপর বিক্রেতার অধিকার প্রতিষ্টিত হওয়া।
ব্যবসার শর্তঃ
১। ক্রেতা বিক্রেতা উভয়ের সন্তষ্টি।
২। ক্রেতাবিক্রেতা সুস্থ মস্তিস্ক প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়া।
৩। পণ্যটি যেন বিক্রেতার মালিকানা বা দায়িত্বে থাকে।
৪। বিক্রেতা তা ক্রেতাকে প্রদান করতে সক্ষম।
৫। ক্রেতা যেন পণ্যটি সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করে দেখার মাধ্যমে অথবা বিবরণ জানার মাধ্যমে এবং মূল্যও জ়েনে নেয়।
৬। পণ্যটি যেন বিক্রেতা কর্তৃক কোন অবৈধ শর্তের সাথে ঝুলন্ত না রাখা হয়।
৭। পণ্যটি যেন হারাম না হয়।
( রেফারেন্সঃ আব্দুর রহমান বিন আব্দুল করিম আল ওবায়েদ লিখিত গ্রন্থ উসুলুল মানহাজিস ইসলামী, পৃষ্ঠা৩২৪, ৩২৮;ফেকহুসসুন্নাহঃ ১০/২৩৬, কেতাবুল বয়ু অধ্যায )
উল্লিখিত সূত্রগুলোর আলোকে মাল্টিলেভেল মার্কেটিং ব্যবসার কোন বিরোধ নেই। এককথায়যেখানে পুঁজি, পণ্য, পরিশ্রম, ক্রয়, বিক্রয়, লাভ, হ্মতি ইত্যাদি কার্য সম্পাদিত হয়, তাহা ব্যবসা এবং যদি তা উল্লিখিত সূত্রগুলোর আলোকে হয় তবে তা হালাল ব্যবসা

আরো বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করুন। আপনার সফলতাই আমার সফলতা। কষ্ট করে পাড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

পোষ্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। আমার সাথে যোগাযোগ এর ঠিকানা নিচে দেওয়া হল।

মোবাইল নাম্বার :- +966555860560

অয়েটসআপ :- +966555860560

ফেসবুক এ যোগাযোগ করতে লাল লেখায় ক্লিক করুন। এখানে

🔥27
বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *